বুধবার   ২৩ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৮ ১৪২৬   ২৩ সফর ১৪৪১

amar24.com|আমার২৪
সর্বশেষ:
এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রের ২শ’ গজের মধ্যে জনসাধারণের প্রবেশ নিষিদ্ধ ‘এরশাদের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে’ ওয়ান ইলেভেনে আশরাফের বলিষ্ঠ ভূমিকা ছিল : প্রধানমন্ত্রী
৩০২

মিসরে জুরি অ্যাওয়ার্ড পেল টুসির মীনালাপ

প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০১৯  

সুবর্ণা সেঁজুতি টুসির মীনালাপের জয়জয়কার অব্যাহত। এবার অর্জনের ৭ম মুকুট শোভিত হল মিসরে। ২১তম ইসমাইলিয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে টুসির ছবি মীনালাপ জিতেছে মর্যাদাপূর্ণ জুরি অ্যাওয়ার্ড। ছবিটি স্বপ্লদৈর্ঘ্য ফিকশন ক্যাটাগরিতে দ্বিতীয় সেরা ছবির মর্যাদা পেয়েছে।

এ আসরে গত ২১ বছরে বাংলাদেশের কোনো ছবি এবারই প্রথম পুরস্কার পেল। ১৬ এপ্রিল ছিল এই উৎসবের সমাপনী দিন। ওই দিন মিসরের সুয়েজ খালের তীরে ইসমাইলিয়ার উৎসবস্থল সাংস্কৃতিক প্রাসাদে বিজয়ীদের পুরস্কৃত করা হয়েছে।

পুরস্কারটি পেয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে টুসি বলেন, ‘মধ্যপ্রাচ্য তথা আফ্রিকা মহাদেশের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে সম্মাননা পাওয়া নিঃসন্দেহে বিরল গৌবরের।

এই পুরস্কার পেয়ে আমি বিস্মিত। আমাকে আরও অনেক দূরের পথ অতিক্রম করার প্রেরণা জোগাবে জুরি অ্যাওয়ার্ড। আমি বাবাকে তার জন্মদিনে এই ট্রফিটি উসর্গ করলাম।’

১৭ এপ্রিল ছিল টুসির পিতা বিশিষ্ট কলামিস্ট, লেখক, গবেষক, কবি ও রাজনৈতিক নেতা এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় মুখপত্র ‘উত্তরণ’ সম্পাদক এবং প্রকাশক ড. নূহ-উল-আলম লেনিনের ৭২তম জন্মদিন।

২১তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে মিসরের ইসমাইলিয়ায় ১০-১৬ এপ্রিল ২০১৯। মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম প্রধান এই চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজকদের নিমন্ত্রণে গত ১০ এপ্রিল টুসি মিসরে যান। অনুষ্ঠানস্থলে মীনালাপ ১৫ এবং ১৬ এপ্রিল মোট দুবার প্রদর্শিত হয়।

এর আগে মীনালাপ ছবিটি পুরস্কার অর্জন করেছে ৬টি। কলকাতায় দ্বিতীয় দক্ষিণ এশিয়া স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসবে মীনালাপ জিতে ‘ঋত্বিক ঘটক স্বর্ণপদক’। নেপাল আন্তঃরাষ্ট্র চলচ্চিত্র উৎসবে মীনালাপ ‘মাউন্ট এভারেস্ট’, ইউরেশিয়া ফিল্ম ফেস্টিভালে গ্র্যান্ডপ্রিক্স, তাজিকিস্তানে ক্রিটিক অ্যাওয়ার্ড, শিলিগুড়ি ও মুম্বাই চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কার জিতে নেয়।

মীনালাপ ২৮ মিনিটের চলচ্চিত্র। গল্প এক বাঙালি দম্পতির সংগ্রামী জীবনের বাস্তবতা এবং স্বপ্ন নিয়ে। ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার প্রযোজনায় নির্মিত।

সুবর্ণা সেঁজুতি টুসি ছোটবেলা থেকে জড়িত মঞ্চ নাটকে। সাংবাদিকতা, টেলিভিশনে উপস্থাপনা আর স্কিপ্ট গ্রন্থনার কাজও করেছেন। পুনে ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া থেকে ফিল্ম ডিরেকশন ও স্ক্রিপ্ট রাইটিংয়ের ওপর পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা করেছেন।

সুবর্ণা সেঁজুতি এর আগে জাদু মিয়া (২০১১), পারাপার (২০১৪) ও পুকুরপারসহ (২০১৮) কয়েকটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। টুসি জানান, আগামী ২১ এপ্রিল দেশে ফিরবেন তিনি।

এই বিভাগের আরো খবর